ফিলিস্তিনিদের প্রতি তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংহতি

ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি সংহতি ও সমবেদনা জানিয়ে এবং ইহুদিবাদী ইসরাইলের হত্যাযজ্ঞ ও দমন-পীড়নের প্রতিবাদে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের শিক্ষার্থীরা তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। এ সময় শিক্ষার্থীরা পবিত্র আল-আকসা মসজিদে ইসরাইলের নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপের অবসান দাবি করে।

এদিকে, মঙ্গলবার সকালের দিকে ইসরাইল কর্তৃপক্ষ আল-আকসা মসজিদ থেকে মেটাল ডিটেক্টর সরিয়ে নিয়েছে। এখন সেখানে শুধু স্মার্ট ক্যামেরা বসানো রয়েছে। ইসরাইলের এ পদক্ষেপের পর আল-আকসা মসজিদের তত্ত্বাবধানকারী আলেমরা বলেছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত এসব ক্যামেরা থাকবে ততক্ষণ কোনো ফিলিস্তিনি আল-আকসা মসজিদে যাবেন না।

ফিলিস্তিনিদের প্রতি তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংহতি

পূর্ব জেরুজালেম বা আল-কুদস শহরে অবস্থিত আল-আকসা মসজিদের আঙিনায় এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর ইহুদিবাদী ইসরাইল গত ১৪ জুলাই মুসলমানদের প্রথম কিবলা আল-আকসা মসজিদ বন্ধ করে দেয়। এমনকি আল-আকসা মসজিদে মুসল্লিদের জুমার নামাজ আদায় বন্ধ করে দেয় ইসরাইল।

অবশ্য এর দু’দিন পর এটি আবার খুলে দেয়া হলেও ইসরাইলি বাহিনী আল-আকসা মসজিদে মেটাল ডিটেক্টর এবং ক্যামেরা ব্যবহারসহ নতুন নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে মুসলমানরা সেখানে প্রবেশে অস্বীকৃতি জানান এবং প্রতিবাদে তারা মসজিদের বাইরের আঙিনায় নামাজ আদায় করে আসছেন।