কক্সবাজারে পাহাড়ধস, শিশুসহ নিহত ৪

বাংলাদেশের কক্সবাজার শহরের লাইট হাউস ও রামু উপজেলার চেইন্দা এলাকায় পাহাড়ধসে চারজন নিহত হয়েছেন। এসময় ১০ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে কক্সবাজার শহরের লাইট হাউজ এলাকা এবং রামু উপজেলার মিঠাছড়ি ইউনিয়নের চেইন্দা এলাকায় এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন—শহরের লাইট হাউস এলাকার মোহাম্মদ শাহেদ (১৮) ও সাদ্দাম হোসেন (২৮) এবং রামু উপজেলার মিঠাছড়ি ইউনিয়নের চেইন্দা এলাকার জিয়াউর রহমানের মেয়ে সায়মা (৫) ও ছেলে জিহান (৭)। আহত ব্যক্তিদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আবদুল মালেক জানান, সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার মিঠাছড়ি ইউনিয়নের চেইন্দা এলাকায় পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে। এতে ঘুমন্ত অবস্থায় মাটির নিচে চাপা পড়ে একই পরিবারের দুই শিশু সায়মা ও জিহান নিহত হয়। এ সময় আহত হন তাদের বাবা জিয়াউর রহমান (৩৫) ও মা আনারকলি (২৯)।তাঁদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।এদিকে, কক্সবাজার শহরের লাইট হাউস এলাকায় পাহাড়ধসের ঘটনায় মোহাম্মদ শাহেদ ও সাদ্দাম হোসেন নিহত হন।এ সময় দেলোয়ার হোসেন (২৫) ও আরাফাত হোসেন (৩০) নামের দুজন আহত হন। তাঁদেরও কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার দুপুর থেকে কক্সবাজারে থেমে থেমে ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

স্থানীয় আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, গত তিনদিন ধরে কক্সবাজার জুড়ে অনবরত বৃষ্টি হচ্ছে এবং গত ২৪ ঘণ্টায় কক্সবাজারে ২০৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আর ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, অমানিশার জোয়ার, পাহাড়ি ঢল ও বৃষ্টির পানি উপকূল সমতল সবখানেই প্লাবিত হচ্ছে। বৃষ্টিপাতে পাহাড়ধসের আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে, কক্সবাজার শহরের পাহাড়তলী, উখিয়া, টেকনাফেও পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত আরও ছয়জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে তাদের নাম তাৎক্ষণিক জানাতে পারেনি সংশ্লিষ্টরা। পাহাড় ধস এলাকার মাটি সরানোর কাজ দ্রুত চলছে বলে জানান স্থানীয়রা।