শেষ হলো ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৫’ বিজয়ীদের অপেক্ষার পালা। আজ ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৫’ বিজয়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে পদক। কয়েকজন বিজয়ীর হাতে প্রথমবরের মতো উঠছে এই পুরস্কার। স্বাভাবিক ভাবেই বেশ কদিন ধরে সেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাঁরা।

প্রিয়াংকা গোপ

প্রিয়াংকা গোপ

শ্রেষ্ঠ সংগীত শিল্পীর পুরষ্কার পাচ্ছেন প্রিয়াংকা গোপ। ‘অনিল বাগচীর একদিন’ ছবিতে ‘আমার সুখ সে তো’ গানের জন্য তিনি এই পুরষ্কার পাচ্ছেন। তিনি বলেন – ‘এটা এমন একটা পুরস্কার যে প্রতি বছর পেলেও নতুনই মনে হবে। তবে এটা সত্যি, প্রথম পাওয়ার অনুভূতিটা অন্য রকম। অনুষ্ঠানে পরে যাওয়ার জন্য আমি একটি জামদানি শাড়ি কিনেছি কদিন আগে। আর আমার সঙ্গে মা-বাবা আর স্বামী যাবেন অনুষ্ঠানে। পুরস্কার প্রদান শেষে একটি সাংস্কৃতিক আয়োজন আছে। সেই অনুষ্ঠানে গান গাওয়ার কথা রয়েছে। এ জন্য কদিন হলো মহড়া করছি। যে গানটির জন্য পুরস্কার পেলাম, সেই গানটিই গাইব আশা করছি।’

তমা মির্জা

তমা মির্জা

নদীজন চলচ্চিত্রে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে এবার এই পুরষ্কার জিতেছেন তমা। তিনি বলেন – ‘প্রস্তুতি তো নিচ্ছি। তবে সমস্যা হলো, গতকাল থেকে আমার জ্বর। চিকুনগুনিয়া কি না, বুঝতে পারছি না। জ্বর নিয়ে প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে। জীবনের প্রথম চলচ্চিত্র পুরস্কার, তাই বাবা-মা আর ছোট ভাইকে নিয়ে যাব। আমার জীবনের এমন আনন্দময় সময়ে তারা পাশে থাকুক, এটাই চাই। অনুষ্ঠানে শাড়ি পরে যাওয়ার পরিকল্পনা আছে।’

সানী জুবায়ের

সানী জুবায়ের

শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক হিসেবে ‘অনিল বাগচীর একদিন’ চলচ্চিত্র থেকে সানী জুবায়ের নির্বাচিত হয়েছেন। সানী বলেন, ‘মজার ব্যাপার হলো, আজ আমার ছোট মেয়ের জন্মদিন। পুরস্কার প্রাপ্তি এবং মেয়ের জন্মদিন দুটি মিলে আমার জন্য আজ অন্য রকম দিন। আমার মেয়েরা বেশ রোমাঞ্চিত। বিশেষ করে বড় মেয়েটি। ওদের দুই বোন এবং স্ত্রীসহ পুরস্কার নিতে যাব। ভালোই তো লাগছে। পুরস্কার পাওয়ার ছবিটি সংগ্রহে রাখতে চাই।’

ইরেশ যাকের

ইরেশ যাকের

খল চরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরষ্কার জিতেছেন ইরেশ যাকের। ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ চলচ্চিত্রে খল চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি এই পুরষ্কার জিতেছেন। ইরেশ বলেন- ‘আলাদা করে প্রস্তুতি নেওয়ার ইচ্ছা ছিল। কিন্তু সুযোগ হয়নি। তবে মানসিক একটা প্রস্তুতি তো আছেই। সেলুনে যাব। চুল কাটাব। এ ছাড়া তেমন কিছু করতে পারছি না। অনুষ্ঠানে আমার সঙ্গে মা (সারা যাকের) যাবেন। সত্যি কথা বলতে কি, আমি লোক দেখানো অনেক কিছুই করতে পারি না। ঘটা করে কিছু বলতেও পারি না। তবে পুরস্কার পাওয়ার ব্যাপারটি অবশ্যই আনন্দের। সেই আনন্দ নিয়েই পুরস্কারটা নিতে যাব।’