এমিলিয়া ক্লার্কের ‘শ্যাল উই বিগিন?’ এই বাক্য দিয়ে শেষ হয় গেম অব থ্রোনস-এর সপ্তম মৌসুমের প্রথম পর্ব। আর এই বাক্যের জন্যই বিখ্যাত এই অভিনেত্রী পারিশ্রমিক নিয়েছেন গুনে গুনে ২০ লাখ পাউন্ড। অর্থাৎ ২০ কোটি ৯৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

গেম অব থ্রোনস-এর প্রধান পাঁচটি চরিত্রে অভিনয় করা শিল্পীরা প্রতিটি পর্বের জন্য মোটা অঙ্কের পারিশ্রমিক পাচ্ছেন। তাঁদের পারিশ্রমিকের পরিমাণ গত মে মাসে প্রকাশ পায় মার্কিন সব গণমাধ্যমে। এমিলিয়া ক্লার্কসহ ‘সারসেই’ চরিত্রে অভিনয় করা লিনা হিডি, ‘জন স্নো’ চরিত্রের অভিনেতা কিট হ্যারিংটন, ‘টিরিয়ন’ ও ‘জেইমি ল্যানিস্টার’ চরিত্রে অভিনয় করা পিটার ডিঙ্কলেজ ও নিকোলাই কোস্টার ওয়ালডো—প্রত্যেকে পর্ব প্রতি পারিশ্রমিক নিয়েছেন ২০ লাখ পাউন্ড, অর্থাৎ ২৬ লাখ ডলার করে। সপ্তম মৌসুমের প্রথম পর্বে এমিলিয়া তিন শব্দের একটিমাত্র সংলাপে এই পারিশ্রমিক নেন।

এদিকে সবচেয়ে বেশি শব্দের সংলাপ ছিল কিট হ্যারিংটনের। তারপর ক্রমানুসারে তালিকায় আছেন লিনা হিডি, নিকোলাই কোস্টার ওয়ালডো এবং পিটার ডিঙ্কলেজ। সবচেয়ে মজার এবং অবাক ব্যাপার হলো, পিটার ডিঙ্কলেজের আসলে কোনো সংলাপই ছিল না প্রথম পর্বে! তাও তিনি পারিশ্রমিক নিয়েছেন ২৬ লাখ ডলার। যদি শব্দ অনুযায়ী হিসাব কষা হয় তাহলে দেখা যায়, প্রতি শব্দের জন্য কিট পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৪২ ডলার, লিনা ৬ হাজার ৫৬৫ ডলার, নিকোলাই ৭ হাজার ৬৪৭ ডলার ও এমিলিয়া পেয়েছেন ৮ লাখ ৬৬ হাজার ৬৬৬ ডলার। এবার তাহলে বুঝুন পিটারের কত আয় হয়েছে।