ফোন ব্যবহারে বারণ করায় দায়িত্ব পালনরত এক মেজরকে হত্যা করেছে সেনাবাহিনীর এক সেনা সদস্য। ঘটনাটি ঘটেছে ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে।

দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলতে মেজর নিষেধ করায় গুলি চালায় এক সেনা সদস্য। ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, কর্তব্যরত অবস্থায় মোবাইল ফোন ব্যবহারে বারণ করেছিলেন মেজর। এ নিয়ে দুজনের মাঝে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এরপরই রাগের মাথায় একে ৪৭ রাইফেল থেকে মেজরকে লক্ষ্য করে গুলি চালান ওই সেনা সদস্য।
এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মেজর শিখর থাপা। সেনা সদস্যের গুলিতে মেজরের প্রাণহানির বিষয়ে এখনো কোনো তথ্য জানায়নি দেশটির সেনাবাহিনী।

তবে সেনাবাহিনীর একটি সূত্র বলছে, ওই মেজর কর্তব্যরত জওয়ানকে মোবাইল ব্যবহারে নিষেধ করেন। সংবেদনশীল এলাকায় কর্তব্যরত অবস্থায় মোবাইল ব্যবহার করার জন্য তার বিরুদ্ধে কম্যান্ডিং অফিসারকে রিপোর্ট করবেন বলে সেসময় সেনা সদস্যকে সতর্ক করে দেন তিনি। পরে মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করেন তিনি। এসময় মোবাইল ফোনটি আঘাত পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ নিয়ে দুজনের মাঝে বাগ-বিতণ্ডা শুরু হয়। তখনই রাগের মাথায় ওই জওয়ান নিজের একে ৪৭ থেকে মেজরকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েন।

মেজর শিখর থাপা জম্মু কাশ্মিরের উরি সেক্টরে কর্মরত ৭১ আর্মড রেজিমেন্টে ছিলেন। সম্প্রতি উত্তপ্ত কাশ্মিরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনীর এলিট ইউনিট ৮ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের সঙ্গে তাকে পাঠানো হয়েছিল।