কুম্বলের চেয়ে দুই কোটি রুপি কম বেতন চাইলেন শাস্ত্রী। অনিল কুম্বলের স্থলাভিষিক্ত হওয়া রবি শাস্ত্রী দায়িত্ব বুঝে নেবেন কিছুদিনের মাঝেই। অনেক জল্পনা কল্পনা শেষে কোচের দায়িত্ব তাঁর কাঁধেই গেছে।

জানা গেছে, কোচ হিসাবে শাস্ত্রী বেতন চেয়েছেন ৭ কোটি রূপি। যেখানে কোচ থাকার সময় কুম্বলে বার্ষিক বেতন দাবি করেছিলেন নয় কোটি রূপি। ভারতের ক্রিকেটারদের বেতনের সাথে মিল রেখে নিজের বেতনটাও ঊর্ধ্বমুখী দেখতে চেয়েছিলেন কুম্বলে। পদত্যাগের আগে তাই বাৎসরিক বেতন হিসাবে ‘এ’ গ্রেড ক্রিকেটারদের বেতনের সমষ্টি (যা প্রায় ৯ কোটি রূপি) দাবি করেন। কিন্তু বোর্ড এই বড় অংকের বেতন দিতে একেবারেই রাজি ছিল না। অন্যদিকে কোহলির পছন্দের কোচ শাস্ত্রী ২ কোটি রূপি কম বেতন চেয়েছেন। শাস্ত্রীর বেতন নিয়ে বিসিসিআইয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট সিকে খান্না, প্রধান নির্বাহী রাহুল জোহরি, পরিচালনা কমিটির সদস্য ডায়ানা এদুলজি ও অমিতাভ চৌধুরী বৈঠকে বসবেন খুব দ্রুতই। এই বৈঠকে কথা হতে পারে জহির খান ও রাহুল দ্রাবিড়ের নিয়োগ চূড়ান্ত করা নিয়েও।

১৯ জুলাই আনুষ্ঠানিক ভাবে দলের দায়িত্ব নিতে পারেন শাস্ত্রী।